দিল্লি পুলিসে বিদ্রোহ কি পুলিসকে লাগামছাড়া ক্ষমতা দেওয়ার জেরেই?

0
13

অাইনজীবীদের সঙ্গে পুলিসদের সংঘর্ষের জেরে মঙ্গলবার ১০ ঘন্টা ধরে সদর দফতরে যে বিক্ষোভ দিল্লি পুলিসের কর্মীরা দেখালেন তা নজিরবিহীন। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী ফোর্সের এই অনুশাসনহীনতা ও পুলিস কর্তাদের পুরো বিষয়টিকে যেভাবে সামাল দিয়েছেন তাতে অখুশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। তবে  পুরো ঘটনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। প্রশ্ন উঠেছে অাইনজীবীদের একাংশের অাচরণ নিয়েও। তারাই বা অাইন হাতে তুলে নিয়ে পুলিস কর্মীকে চড় মারলেন কী করে?

গত শনিবার দিল্লির তিস হাজারি অাদালতে বাইক রাখাকে কেন্দ্র করে পুলিসের সঙ্গে গণ্ডগোল বাধে অাইনজীবীদের একাংশের।  পুলিসের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ করেছেন অাইনজীবী অভিষেক মণু সিংভি।পুলিস গুলি চালানোয় পুরো বিষয়টি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।  অাদালত চত্বরে পুরো ঘটনার বিচারবিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছে।

এরাজ্যে কয়েক মাস অাগে হাওড়া অাদালতের অাইনজীবীদের সঙ্গে এরকমই একটি গন্ডগোলের জেরে অাইনজীবীদের বেধড়ক পিটিয়েছিল পুলিস। ঘটনার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে দীর্ঘদিন কর্মবিরতি করেছিলেন অাইনজীবীরা। অাসলে পুলিসদের শাসকদল ব্যবহার করতে করতে নিয়মনীতির তোয়াক্কা করেনা কোন পক্ষই। পুলিস অাইন সংস্কারের দাবি দীর্ঘদিন ধরেই জানিয়ে অাসছেন মানবাধিকার কর্মীরা। দিল্লির এই ঘটনা ফের দেখাল পুলিস অাইন বা নিয়মাবলী সংস্কার কতটা জরুরি। পুলিসদেরকে জবাবদিহি করতে হবে অাইনের রক্ষক বলে সবকিছুতে ছাড় তারা পেতে পারেন না।