ছল করে প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনের নেত্রীকে গ্রেফতার,অভিযোগ যাদবপুর থানার বিরুদ্ধে, পরে জামিন মঞ্জুর

0
221
  যাদবপুর থানার পুলিশ তাদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে বলে অভিযোগ করল উস্তি ইউনাইটেড টিচার্স ওয়েলফেয়ার এ্যসোসিয়েশন।প্রাথমিক শিক্ষকদের এই সংগঠনের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার অভিযোগ করা হয় অবস্থান মঞ্চ থেকে বুধবার রাতে যাদবপুর থানা প্রথমে ১০জন শিক্ষককে থানায় নিয়ে যাবার পর কিছু সময়ের মধ্যেই ৪জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়। বৃহষ্পতিবার সকালে সংগঠনের সম্পাদক পৃথা বিশ্বাস যাদবপুর থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে বাকি ছয়জনকে কেন ছাড়া হবে না তা জানতে চান। যাদবপুর থানা থেকে তখন পৃথাদেবীকে জানানো হয়,কিছু কাগজপত্রে সই করলেই বাকিদেরও ছেড়ে দেওয়া হবে।সেই সূত্রে পৃথা বিশ্বাসকে থানায় গিয়ে যাোগাযোগ করতে বলা হয়। অভিযোগ এর পর বাকি ছয়জনকে ছাড়াতে কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে পৃথা দেবী থানায় গেলে তাঁকেও গ্রেপ্তার করা হয়।বৃহস্পতিবার পৃথা বিশ্বাস সহ ৭ প্রাথমিক শিক্ষক  আলিপুর অাদালতে তোলা হলে বিচারকত তাদের জামিনের অার্জি মঞ্জুর করেন।
 উস্তু ইউনাইটেড টিচার্স ওয়েলফেয়ার এ্যসোসিয়েশনের অন্যতম সদস্য চন্দন চট্টোপাধ্যায় সাতদিন ডট ইনকে বৃহস্পতিবার জানান,বুধবার যেভাবে যাদবপুর থানা একরকম প্রতারণা করে তাঁদের সম্পাদক পৃথা বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করেছে তা চরম প্রতিশ্রুতি ভঙ্গের সামিল।চন্দনবাবুদের আশঙ্কা এর আগে একটানা ১৪দিন অনশন করে সরকারি প্রতিশ্রুতি আদায় করার পর বুধবার পৃথা যেভাবে সরাসরি শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতে পৌঁছে গেছিলেন,তাতে চরম অস্বস্তিতে পড়েই সরকার তাঁদের সম্পাদকের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে উঠছে।এর বিরুদ্ধে সমস্ত মানুষের সহমর্মিতা ও সহযোগিতা কামনা করেন প্রাথমিক শিক্ষক সংগঠনের সদস্য চন্দনবাবু।
  যেভাবে সরকার শিক্ষকদের দাবি-দাওয়া আন্দোলনকে দমন করতে তাদের গ্রেপ্তার করছে তাতে মানবাধিকার সংগঠন থেকে শিক্ষাবিদদের একাংশ সরকারের সামালোচনায় সরব হয়েছেন।সিপিএম নেতা সুজন চক্রবর্তী জানান,ওরা বিকাশভবনের সামনে প্রতিবাদ অবস্থান করলে পুলিশ তুলে দেবে,রানিরাসমনি রোডে অবস্থান করলে পুলিশ এসে শিয়ালদা স্টেসনে দিয়ে আসবে। জেলায় মঞ্চ বেঁধে প্রতিবাদ করলে পুলিশ রাতের অন্ধকারে এসে লাইট নিভিয়ে মহিলাদের শাড়ি ব্লাউজ খুলে পেটাবে।নবান্নে যাওয়া যাবে না প্রতিবাদের জন্য। কোথায় যাবেন শিক্ষকরা?সুজনবাবুর কথায় এই স্বৈরাচারি আচরণ বন্ধ করতে রাস্তাই একমাত্র রাস্তা।প্রতিবাদী শিক্ষকদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন সুজনবাবু । অান্দোলনরত শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আপাতাত তারা গ্রেপ্তার হওয়া সকল শিক্ষককে জেল থেকে ছাড়াবার ব্যবস্থা করবেন,তারপর এই বিষয়টি নিয়ে আর বড় আন্দোলনের পক্ষে হাঁটবে তারা।