মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারিকে উপেক্ষা করে অ্যাপোলো আছে অ্যাপোলোতেই

0
7

বেসরকারি হাসপাতালগুলো যে মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারিকে কানেই তোলেনি তা ফের প্রমাণ মিলল। অন্তত  অ্যাপোলোতো নয়ই। পথ দুর্ঘটনার পর গত ১৬ ফেব্রুয়ারি অ্যাপোলোতে ভর্তি হন বছর তিরিশের যুবক সঞ্জয় রায়। অস্বাভাবিক  বিলের কারণে গত বৃহষ্পতিবার বিকেলে রোগীর পরিবার  সঞ্জয়বাবুকে sskm এ  স্থানান্তিরত  করার সিদ্ধান্ত নেয়। কিন্তু বিল মেটান নিয়ে টানা পোড়েনের জেরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া দেরি হয় বলে অভিযোগ। ওই দিনই রাতে সঞ্জয়বাবুর sskm এ মারা যান। কয়েকদিনে অ্যাপোলোর বিল হয় ৭ লক্ষ ৪১ হাজার টাকার বেশি।  অভিযোগ রোগীর পরিবারকে ফিক্সডিপোজিটের কাগজ রাখতে বাধ্য করে  অ্যাপোলো। রোগী ছাড়াতে বাড়ির দলিল ও সোনাও চাওয়া হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি ফিক্সডিপোজিটের কাগজ রোগীর পরিবার স্বেচ্ছায় তাদের কাছে জমা দেন। দলিলের বিষয়টি কখনও আলোচনাতেও ওঠেনি। অন্যদিকে মিডিয়াকে সাক্ষী রেখে ফোনে অ্যাপোলোর CEO রাণা দাশগুপ্তকে ধমকান মদন মিত্র। বলেন অ্যাপোলোর থেকে কেওড়াতলা শশ্মানও ভাল। প্রাক্তন মন্ত্রীর এই হঁশিয়ারিতে  অবশ্য কাজও হয় । রোগীর পরিবারকে পুরো টাকাটাই ফেরত দিতে সম্মত হয় অ্যাপোলো। কিন্তু এটাই কি শেষ?